Home আন্তর্জাতিক লাখো ফেসবুক পেজে ভাসছে একটা মুখ

লাখো ফেসবুক পেজে ভাসছে একটা মুখ

619

 

স্টাফ রিপোটারঃ-সাতক্ষীরার সকল স্তরের মানুষের ফেসবুক পেজে ভাসছে একটা মুখ । আগামী ১২ ডিসেম্বর সাতক্ষীরা জেলা আ”লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে হাজারো যুবকের হৃদয়ে স্পন্দন,সৎ, পরিচ্ছন্ন ও মেধাবী, যুবসমাজের অহংকার,অবহেলিত নেতা কর্মীর শেষ ঠিকানা,এ রকম শত বিশেষনে যার নামটি সকলের হৃদয়ে বাজছে, যাকে ঘিরে সাতক্ষীরার প্রতিটি উপজেলার দলীয় নেতা কর্মী স্বপ্ন দেখছেন ,তিনি হলেন সফল ছাত্র ও যুবলীগ নেতা আলহাজ¦ আসাদুজ্জামান বাবু।


যে মানুষটিকে নিয়ে এতো জল্পনা কল্পনা একটু পেছন থেকে জানা যাক, কি তার রাজনৈতিক পরিচয় ?
আসাদুজ্জামান বাবুর পিতা আব্দুল গফ্ফার তিনি ছাত্র জীবন থেকেই ছাত্রলীগের সক্রিয় রাজনীতির সাথে যুক্ত ছিলেন।তিনি সরকারী কলেজ ছাত্র সংসদের লাইব্রেরী সম্পাদক ছিলেন।পরবর্র্তিতে তিনি ব্রহ্ম্ররাজপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে সকলের প্রিয় গফ্ফার চেয়ারম্যানে পরিনত হন। তিনি আমৃত্যু আওয়ামীলীগের রাজনীতির সাথে সরাসরি যুক্ত ছিলেন ।
আসাদুজ্জামান বাবুর নানা আবুল হোসেন বঙ্গবন্ধুর প্রাদেশিক পরিষদের সদস্য ছিলেন।
বাবুর মামা নির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান ছিলেন ।তিনি ২০১৩ সালের নির্বাচনে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।
আসাদুজ্জামান বাবুর শ্বশুর রাকিব হোসেন যশোর জেলা আ”লীগের দ্বীর্ঘদিন সাধারন সম্পাদক ছিলেন ।
বাবুর শ্বাশুড়ী আলেয়া আফরোজ ছিলেন খুলনা -যশোর- সাতক্ষীরা সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য।


ব্যক্তি আসাদুজ্জামান বাবুর রাজনৈতিক পরিচয়
৮০ দশকে তার রাজনিতী জীবন শুরু। ১৯৯৪ সালে সাতক্ষীরা জেলা ছাত্রলীগের অর্থ সম্পাদক ছিলেন। ১৯৯৫ সালে জেলা ছাত্রলীগের নির্বাচনে সাতক্ষীরা জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক পদে নির্বাচিত হন। এবং সুনামের সাথে জেলা ছাত্রলীগের নেতৃত্ব দিয়েছেন।
২০০৩ সালে জেলা যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক মনোনীত হন।
২০০৫ সালে জেলা যুবলীগের সম্মেলনে সাতটি উপজেলা এবং একটি পেীর সভার যুবলীগের নেতৃবৃন্দের ভোটের মাধ্যমে জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। নির্বাচিত হয়ে ঘুনেধরা যুবলীগকে একটি শক্তিশালী আদর্শবান যুবলীগে রুপান্তরিত করেন। যেটি যুবলীগের রাজনীতিতে একটি মডেল হয়ে আছে এমনী মন্তব্য সাতক্ষীরার সর্ব মহলে।


তার সততার ও রাজনৈতিক দক্ষতার কারনে ২০১৩ এবং ২০১৯ সালে সাতক্ষীরা সদর উপজেলার আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দের সমর্থন নিয়ে বিপুল ভোর্টে দুই বার উপজেলার পরিষদ চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে দায়িত্ব পালন করে চলেছেন।২০১৩ সালে তিনি খুলনা বিভাগে শ্রেষ্ঠ উপজেলা চেয়ারম্যান হিসেবে বিবেচিত হয়েছেন।

তিনি সাতক্ষীরা সদর উপজেলা আ.লীগের সদস্য পদ পান২০১৫ সালে ও ২০১৬ সালে সাতক্ষীরা জেলা আ.লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক পদ লাভ করেন। তিনি আওয়ামীলীগের রাজনীতিতে সততা ও দক্ষতার সাথে দায়িত্ব পালন করে চলেছেন।


আওয়ামীলীগের সকল শ্রেনির নেতা কর্মীর ও সাধারন মানুষের কাছে একটি জনপ্রিয় মুখ আসাদুজ্জামান বাবু সাতক্ষীরা জেলা আ”লীগের সম্মেলনকে সামনে রেখে আ”লীগ’র তৃণমূলের থেকে শুরু করে সর্বস্থরের নেতা-কর্মী ও সমর্থকদের মধ্যে একটি উত্তেজনা কাজ করছে সেটি হলো কে হচ্ছেন তাদের অভিভাবক । বিভিন্ন তথ্য থেকে জানা যায়, যারা সাতক্ষীরা জেলা আ”লীগের সাধারন সম্পাদক পদে লড়ছেন তাদের মধ্যে সকলের হৃদয়ে স্থান করে জনপ্রিয়তার শীর্ষে আছেন আলহাজ¦ আসাদুজ্জামান বাবু বলে আসা পোষন করেছেন তৃণমূল আ.লীগের কাউন্সিলর ও দলীয় সমর্থকরা । সাধারন মানুষ থেকে শুরু করে আওয়ামীলীগের সকল পর্যায়ের মানুষের দাবী বাবু সাধারণ নেতা-কর্মীদের মূল্যায়ন করেন, লোভ লালসার উর্দ্ধে থেকে সততার সাথে সকলের সমস্যাগুলো দেখার চেষ্টা করেন। আগামী ১২ তারিখের জেলা আ.লীগের কাউন্সিলে আসাদুজ্জামান বাবুকে সাধারণ সম্পাদক হিসেবে পেলে জেলা আ”লীগ নতুন যৈৗবন ফিরে পাবে বলে আসা সকল আ”লীগের নেতা কর্মীর।আরো পড়ুন